Dinajpur News Time
সোমবার , ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ১০ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অর্থনীতি
  3. আইন ও আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আবহাওয়া
  6. কৃষি ও প্রকৃতি
  7. ক্রিকেট
  8. খেলাধুলা
  9. চাকরি
  10. জাতীয়
  11. জীবনযাপন
  12. জেলার খবর
  13. তথ্যপ্রযুক্তি
  14. দেশজুড়ে
  15. ধর্ম

দিনাজপুরে আগামী বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে তাবলীগ জামাতের ৩ দিনব্যাপী জেলা ইজতেমা শেষ হবে শনিবার

প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২৩ ১০:৪৮ অপরাহ্ণ

দিনাজপুরে আগামী বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে তাবলীগ জামাতের ৩ দিনব্যাপী জেলা ইজতেমা শেষ হবে শনিবার
মাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ দিনাজপুরে আগামী বৃহস্পতিবার (২ মার্চ-২০২৩) বাদ ফজর আম বয়ানের মধ্য দিয়ে তিন দিনব্যাপী তাবলীগ জামাতের জেলা ইজতেমা আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হবে। বৃহস্পতিবার আম বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয়ে ২ এপ্রিল শনিবার জোহরের নামাজের পূর্বে আখেরী মুনাজাতের মাধ্যমে জেলা এজতেমা শেষ হবে।
দিনাজপুর গোর-এ-শহীদ ময়দানে (বড়মাঠ) পুলিশ কার্যালয়ের সামনে এই ইজতেমা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের জন্য প্যান্ডেল তৈরীর কাজ সোমবার (২৯ ফেব্রুয়ারী) সন্ধ্যা পর্যন্ত বেশীরভাগ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। বুধবারের মধ্যে প্যান্ডেলের বাকী সব শেষ হয়ে যাবে এমনটি জানিয়েছেন মাঠে কাজ করতে আসা কয়েকজন মুসল্লি। তাবলীগ জামাতের সাথীরা স্বেচ্ছাশ্রমে ইজতেমার প্যান্ডেল তৈরীসহ অন্যান্য সব কাজ করছেন।
দিনাজপুর জেলার ১৩টি উপজেলা, পাশের ঠাকুরগাঁও, পঞ্চগড়, নীলফামারী, রংপুর, গাইবান্ধাসহ অন্যান্য জেলা-উপজেলা হতে আগত তাবলীগ জামাতের সাথীদের নিয়ে এই ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবে। শুক্রবার ইজতেমা প্যান্ডেলেই জুমার নামাজ আদায় করা হবে। এটি জেলার সর্ববৃহৎ জুমার নামাজের জামাত হবে বলে জানিয়েছেন তাবলীগ জামাতের কয়েকজন মুরব্বি। ইজতেমায় মালয়েশিয়া হতে আগত একটি জামাত অংশগ্রহণ করার কথা রয়েছে।
দিনাজপুর তাবলীগ জামাতের আমীরে ফায়সাল ও তিন দিনব্যাপী ইজতেমার জিম্মাদার (দায়িত্বশীল) হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) কৃষি রসায়ন বিভাগের প্রফেসর ড. মোঃ আব্দুল হাকিম জানান, ইজমেতায় বাংলাদেশের আমীরে ফায়সাল ঢাকার কাকরাইলের জিম্মাদার (দায়িত্বশীল) মাওলানা মোশাররফ হোসাইন, মুফতি মাওলানা নুরুল ইসলামসহ আরো কয়েকজন জিম্মাদার (দায়িত্বশীল) দিনাজপুরের ইজমেতায় আসবেন। এছাড়া মালয়েশিয়ার একটি জামাতও এরই মধ্যে দিনাজপুরে অবস্থান করছেন। তিনি জানান, এই মেহমানগন ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের সামনে বয়ান পেশ করবেন। শনিবার বেলা ১২টার মধ্যে আখেরী মুনাজাতের মাধ্যমে ৩ দিনব্যাপী এই ইজতেমা শেষ হবে।
দিনাজপুরের প্রবীন আরেক জিম্মাদার আলহাজ্ব মোঃ মেহেরুল ইসলাম আরো জানান, মানুষকে দ্বীনের পথে উদ্বুদ্ধ করতে, আল্লাহর ইবাদত-বন্দেগীর দিকে রুজু করতে, কিভাবে মানুষকে আখেরাতমূখী করা যায়, আখেরাতের জিন্দেগী বা মৃত্যুর পরবর্তি জীবন কেমন হবে, মানুষের মাঝে হক তথা সঠিক পথ কবুল করার যোগ্যতা তৈরী এ সব বিষয়ে এই ইজতেমায় বয়ান (আলোচনা) করবেন তাবলীগ জামাতের মুরব্বিরা।
তাবলীগ জামাতের একজন মুরব্বি জানান, ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের জন্য গোর-এ-শহীদ ময়দানে (বড়মাঠ) প্যান্ডেল তৈরীর কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। বুধবারের মধ্যে সব কাজ শেষ হবে। কত লোক আসবে তা বলা যাবে না। তবে যে প্যান্ডেল তৈরী করা হয়েছে প্রয়োজন হলে তার বাইরে প্যান্ডেল তৈরীর জন্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জামাদি রাখা আছে। তৈরী প্যান্ডেলে ২৫/৩০ হাজার মুসল্লি অবস্থান করতে পারবেন বলে জানান তিনি।
এদিকে ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের জন্য এরই মধ্যে অজু-গোসলের পানি সরবরাহের জন্য ২০টি টিউবওয়েল, একটি সাবমারসেবল পাম্প, ৩টি মটর স্থাপন করা হবে। লাইটিংয়ের জন্য বৈদ্যুতিক জেনারেটর বসানো হবে। এছাড়া নিরাপদ স্যানিটেশনের জন্য দুই শতাধিক টয়লেট তৈরা করা হবে। বিদেশী মেহনান ও তাবলীগ জামাতের বৃদ্ধ সাথীদের জন্য মাঠের দক্ষিণ পাশে খাস কামরা (বিশেষ কক্ষ) তৈরী করা হয়েছে। এই খাস কামরায় আগত বিদেশী মেহমান ও তাবলীগ জামাতের বৃদ্ধ সাথীরা থাকবেন বলে তাবলীগ জামাতের জিম্মাদাররা (দায়িত্বশীল) জানিয়েছেন।
ইজতেমায় প্যান্ডেল তৈরী, টয়লেট নির্মাণ, নিরাপদ পানি সরবরাহের জন্য টিউবওয়েল স্থাপন, বিদ্যুৎ সংযোগসহ অন্যান্য বিভাগের জন্য আলাদা আলাদা জিম্মাদার (দায়িত্বশীল) নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। আর এসব স্থাপনের সব ধরনের খরচ তাবলীগ জামাতের সার্থীরা নিজ উদ্যোগে করবেন। কারো নিকট থেকে কোন ধরনের সহযোগিতা নেয়া হয়নি। তবে কেউ কেউ স্বেচ্ছায় আর্থিকভাবে সহযোগিতা করছেন। একমাত্র আল্লাহকে রাজি-খুশি ও সওয়াবের আশায় সবাই অনেকেই স্বেচ্ছায় এসব কাজ করেছেন তাবলীগ জামাতের সাথীরা।
এদিকে ইজতেমা উপলক্ষে জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে ইজমেতা মাঠে অবস্থানের জন্য আগত মুসল্লিদের জন্য চাটাইসহ অন্যান্য সামগ্রী নিয়ে ইজতেমা মাঠের উত্তর ও দক্ষিণ পাশে পাশে দোকানীরা তাদের দোকান নিয়ে বসবেন। টুপি, তসবিহ, জায়নামাজ, মেছওয়াকসহ অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী বিক্রির জন্য দোকানীরা তাদের দোকান তৈরী করবেন।
দিনাজপুর তাবলীগ জামাতের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য আলহাজ¦ মোঃ মেহেরুল ইসলাম ও হাবিপ্রবির শিক্ষক কৃষি রসায়ন বিভাগের প্রফেসর ড. মোঃ আব্দুল হাকিম আমীরে ফায়সাল হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও ১০জন শুরা সদস্য রয়েছেন। মূলত তারাই পুরো দিনাজপুর জেলার তাবলীগ জামাতের কার্যক্রম পরিচালনা করেন।
উল্লেখ্য, এর আগে ২০২২ সালের ৩১ মার্চ হতে ২ এপ্রিল পর্যন্ত দ্বিতীয়বার ও ২০১৭ সালের ৩১ নভেম্বর থেকে ২ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রথমবারের মত দিনাজপুরে ৩দিনব্যাপী তাবলীগ জামাতের জেলা ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

সর্বশেষ - সর্বশেষ

আপনার জন্য নির্বাচিত

দিনাজপুরে পুলিশের অভিযানে ৩ অপহরণকারী আটক

দিনাজপুরে জেলায় জামায়াতের আমিরসহ আটক ৮

মেসি সহ ঢাকায় আসছে আর্জেন্টিনা

দিনাজপুর জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের নতুন আহবায়ক কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত

নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে গলায় ফাঁস দিয়ে মশিয়ার রহমান নামে এক যুবক আত্মহত্যা

খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চাল পেল ১৪শ পরিবার

দিনাজপুরে আগামী বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে তাবলীগ জামাতের ৩ দিনব্যাপী জেলা ইজতেমা শেষ হবে শনিবার

ব্রয়লার মুরগির কেজি ২০০ টাকা

AS

চিরিরবন্দরে যুবকের গলা কাটা লাশ উদ্ধার

হাবিপ্রবি’র একাডেমিক ভবন-৪ ও নবনির্মিত ছাত্রী হলের শুভ উদ্বোধন করলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী