Dinajpur News Time
শুক্রবার , ২০ জানুয়ারি ২০২৩ | ১৪ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. আইন ও আদালত
  2. আন্তর্জাতিক
  3. আবহাওয়া
  4. খেলা
  5. চাকরি
  6. জাতীয়
  7. জীবনযাপন
  8. ধর্ম
  9. বাণিজ্য
  10. বাংলাদেশ
  11. বিনোদন
  12. বিশেষ সংবাদ
  13. বিশ্ব
  14. মতামত
  15. রাজনীতি

নারায়ণগঞ্জের খানপুর ও ভিক্টোরিয়া হাসপাতালে মহিলা ও পুরুষ দালালদের দৌরাত্ম্য বৃদ্ধি।

প্রতিবেদক
adminrony
জানুয়ারি ২০, ২০২৩ ১২:২২ পূর্বাহ্ণ

নারায়ণগঞ্জের খানপুর ও ভিক্টোরিয়া হাসপাতালে মহিলা ও পুরুষ দালালদের দৌরাত্ম্য বৃদ্ধি।
এমদাদুল হক মিলন~বিশেষ প্রতিনিধিঃ-
নারায়ণগঞ্জের খানপুর ও ভিক্টোরিয়া হাসপাতালে মহিলা ও পুরুষ দালালদের দৌরাত্ম্য বেড়ে গেছে।এতে সাধারণ রোগীদের বাইরে স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও চিকিৎসা করাতে গিয়ে অতিরিক্ত টাকা খরচ হচ্ছে। এ ছাড়া দালালদের কারণে রোগী ও তাঁদের স্বজনেরা হয়রানির শিকার হচ্ছেন। হাসপাতালের কর্মকর্তা, স্থানীয় বেসরকারি ক্লিনিক ও রোগনির্ণয়কেন্দ্রের (ডায়াগনস্টিক সেন্টার) মালিকেরা এই দালাল চক্র গড়ে তুলেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, জরুরি বিভাগের সামনে একদল তরুণ দাঁড়িয়ে রয়েছেন। তাঁদের মধ্যে একজনের নাম উজ্জ্বল। হাসপাতাল এলাকায় তাঁর বাড়ি।
জরুরি বিভাগের চারদিকে সারিবদ্ধ ইজিবাইক দাঁড়ানো। ইজিবাইকের সামনে চালক দাঁড়িয়ে। এ সময় হাসপাতাল থেকে বের হন এক রোগী। হাতে তাঁর একটি ব্যবস্থাপত্র। তিনি বের হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দালালেরা রোগী ও তাঁর স্বজনদের নির্দিষ্ট ডায়াগনস্টিক সেন্টারে পরীক্ষা–নীরিক্ষা করানোর জন্য টানাটানি শুরু করেন। নাম গোপন রাখার শর্তে এক দালাল সকাল নারায়ণগঞ্জকে বলেন, জেনারেল হাসপাতাল এলাকায় গড়ে ওঠা বেসরকারি ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলোর মালিকেরা হাসপাতালে কর্মরত ঝাড়ুদার, পরিচ্ছন্নতাকর্মী, ইজিবাইকচালকদের নিয়ে একটি দালাল চক্র তৈরি করেছে।
চিকিৎসক ব্যবস্থাপত্রে পরীক্ষা–নিরীক্ষা লিখে দেওয়ার পর দালালেরা রোগীদের ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে রোগীদের নিয়ে যায়। একজন রোগী নিয়ে আসতে পারলে একজন দালাল ১০০ টাকা পেয়ে থাকেন। একইভাবে সমপরিমাণ টাকা কমিশন পেয়ে থাকেন হাসপাতালের কর্মকর্তারা। খানপুর ও ভিক্টোরিয়া হাসপাতালের সামনে ও আশপাশ এলাকায় গড়ে উঠেছে ১০ থেকে ১২টি ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও প্রাইভেট ক্লিনিক। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের শয্যা সংকট ও চিকিৎসাসেবার অব্যবস্থাপনার সুযোগে দালালরা রোগীদের নিয়ে যায় ক্লিনিকে।
কতিপয় চিকিৎসকও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে পাঠাচ্ছেন ডায়াগনস্টিক সেন্টারে। রোগীরা বাধ্য হয়ে এসব প্রতিষ্ঠানে ছুটছেন। পৌর এলাকায় গড়ে ওঠা ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলোতে চলছে চিকিৎসার নামে কমিশন বাণিজ্য। হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স ও দালালদের কমিশন বাণিজ্যের কারণে জমজমাট হয়ে উঠেছে ক্লিনিক ও প্যাথলজি ব্যবসা। সরকারি হাসপাতালে রোগীদের প্রয়োজন ছাড়াই বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার ব্যবস্থাপত্র ধরিয়ে দেয়।

সর্বশেষ - অপরাধ

আপনার জন্য নির্বাচিত

ক্রেন ছিঁড়ে গার্ডারচাপায় ১ কোটি ৪০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিল চীনা কোম্পানি

জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে সম্পন্ন হলো দিনাজপুরের উদ্যোক্তাবর্গের ২য় মহা-উৎসব

ঠাকুরগাঁও-৩ উপনির্বাচনে গোলাপ ফুল মার্কার এমদাদুল হকের,পথসভা গণসংযোগ অনুষ্ঠিত হয় ।

চিরিরবন্দরে আজকের পত্রিকার প্রতিনিধি মানিকের উপর হামলা

বিশ্ব ইজতেমায় অজুর পানি বিক্রি হচ্ছে ৩০ টাকায়

দিনাজপুরে বিএনপি নেতা মোস্তাফিজ আহমেদ জুয়েলের জানাজা ও দাফন সম্পন্ন

দিনাজপুরে ভুয়া নিয়োগ প্রদানকারী প্রতারক চক্রের হোতা গ্রেপ্তার দিনাজপুর পুলিশ

দিনাজপুরে বিভিন্ন আয়োজনে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী পালিত

“আনন্দ বেদনায় ভরা মুক্তিযুদ্ধে দিনাজপুরের বিজয়”

বাংলাদেশ জাতীয় সাংবাদিক ফোরামে পীর গঞ্জ উপজেলা কমিটির মাসিক মিটিং ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত