Dinajpur News Time
শুক্রবার , ২০ জানুয়ারি ২০২৩ | ১৭ই আশ্বিন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অর্থনীতি
  3. আইন ও আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আবহাওয়া
  6. কৃষি ও প্রকৃতি
  7. ক্রিকেট
  8. খেলাধুলা
  9. চাকরি
  10. জাতীয়
  11. জীবনযাপন
  12. জেলার খবর
  13. তথ্যপ্রযুক্তি
  14. দেশজুড়ে
  15. ধর্ম

পূর্ব শত্রুতার জেরে শাশুড়ি দেবরসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা এলাকাবাসীর ক্ষোভ

প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
জানুয়ারি ২০, ২০২৩ ১০:৪২ অপরাহ্ণ

পূর্ব শত্রুতার জেরে শাশুড়ি দেবরসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা এলাকাবাসীর ক্ষোভ
আঃ রাজ্জাক জয়পুরহাট থেকেঃ
জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার মামুদপুর ইউনিয়নের ধনতলা গ্রামে জমিজমা সংক্রান্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করে হয়রানীর অভিযোগে। এলাকাবাসী ক্ষোভে ফুঁসে উঠেছে। এ বিষয়ে থানা পুলিশকে সঠিক তদন্ত করে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিও জানিয়েছেন তারা। গত (৫জানুয়ারী)২০২৩’ সম্পা বানু বাদী হয়ে জয়পুরহাট বিজ্ঞ জুডিসিয়াল ম্যজিষ্ট্রেট আমলী আদালতে আইনের ধারা ১৪৭/৪৪৭/৩২৪/৩৮০/৩৫৪/৩০৭/৩১২/৩১৫/৩৪ দঃ বিঃ অভিযোগে মামলা দায়ের করছেন।
মামলায়ঃ আসামীরা হলেনঃ উপজেলার চৌমহনি বাজারের ধনতলা গ্রামের মৃত্য আকা মদ্দিনের ছেলে নজরুল, নজরুলের স্ত্রী তহমিনা, রবিউলের স্ত্রী সুলতানা ও রাবেয়া বেওয়া৷ উভয়ের সাং চৌমনি বাজার ধনতলা৷
সম্পার করা মিথ্যা মামলা থেকে মুক্তির জন্য চৌমনি বাজার সংলগ্ন ধনতলা গ্রামেের লোকজন গণ স্বাক্ষাত কার দিয়েছেন।
ইতি পূর্বে বিগত ২০১০ সালে জয়পুরহাট বিজ্ঞ আদালতে ১২ বছর পূর্বে একই আইনে বিচার চেয়ে মামলা দায়ের করেন সম্পা বানুর স্বামী মোঃ ফিতা মিয়া৷ সেই মামলা মিথ্যা ছিলো৷
এবিষয়ে সাবেক ইউপি সদস্য মোঃ খলিল আকন্দ বলেন, মো নজুরুল আমার প্রতিবেশী। অত্যন্ত ভালো ও একজন চরিত্রবান মানুষ। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে সাজানো মিথ্যা হত্যা চেষ্টা ছিনতাই মামলা দিয়ে হয়রানী করেছে। আমি উক্ত মিথ্যা মামলার তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। যদি সম্পা আঘাত পেয়ে থাকতো ক্ষেতলাল সরকারি হাসপাতাল ছেড়ে দুপচাচিয়া চিকিৎসা নিলো কেনো নিশ্চয় এটা মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অসৎ উদ্দেশ্য৷
স্থানীয় ধনতলা পুরু গ্রামের মানুষ জানান৷ নজরুল সুলতানা রাবেয়া তহমিনা এদের মতো ভালো মানুষ আমাদের এলাকায় খুব কম আছে। আমি নারী হয়ে বলতে পারি এরা সৎ চরিত্রবান মানুষ। তার সাথে জমি-জমার সিমানা নিয়ে দ্বন্দ্ব আপন দুই ভাইয়ের গায়ের জোরে ফিতা মিয়া, নজরুল ও সৎ মায়ের সাথে দীর্ঘদিন যাবত দন্দ্ব চলে আসছে। হয়তো সেই জেরে সম্পা বানু হাসপাতালে ভর্তি হয়ে ফিতা মিয়া স্ত্রীকে দিয়ে এই ঘটনা সাজিয়ে মামলা করেছে । একই অভিযোগ তোলেন ওই গ্রামের স্থানীয় নজরুল ইসলাম, সাফিয়া, বেদেনা বেগম, হাওয়া বেগমসহ এক শতাধিক মানুষ।
এদিকে মামলায় ৩ নং ও ৪ নং স্বাক্ষী জানান এই মামলায় যে আমাদের স্বাক্ষী বানিয়েছে তাতে আমাদের কোন অনুমতি নেয়নি এবং আমরা শ্রমিক হিসেবে তাদের বাড়িতে কাজ করেছি। তাদেন মধ্যে ইট রাখার জন্য কথা কাটা কাটি হয়েছে। এখানে মার ধর বা চুরি ছিনতাইয়ের কোন ঘটনা এখনে ঘটেনি মিথ্যা মামলার স্বাক্ষী দিতে আমরা কোথাও যাবো না৷
অপরদিকে মামলার ১ ও ২ নং স্বাক্ষী বাদির আপন ভাতিজি ও ভাতিজা। তাদের আনুমানিক বয়স ১২ থেকে ১৩ বছর। তারা এই মামলার স্বাক্ষী। এই দুই জন এখানকার বাসিন্দা নয়৷
মামলার ১ নং আসামী নজরুল ইসলাম জানান, আমি ঘটনার দিন দুপচাচিয়া ধাপের হাটে গরু ক্রয় করতে যাই। গরু নিয়ে আসতে সন্ধা হয়েছে। ফিতার অত্যাচারে নিজ জায়গা ছেড়ে দিয়েছি৷ ওই গৃহবধূ সম্পার দেবরের দাবি তার সৎ মায়ের বিরুদ্ধে আনা ভাবির এমন অভিযোগ সত্য নয়। প্রায় দুই বছর যাবত তাদের সাথে জমি নিয়ে বিরোধ চলছে যে কারণে এমন মিথ্যা অভিযোগ। আমাকেও আমার মা’র নামে আদালতে মিথ্যা মামলা করেছে।
আইনশৃঙ্খলা বাহিনির প্রতি আমার দাবি সঠিক তদন্ত করে সত্যিটা বের করে আনা ৷
এ বিষয়ে মামলার বাদী ফিতা মিয়ার স্ত্রী সাম্পা বানু জানান, আমি কোর্টে মামলা করেছি, কোর্ট যে রায় দিবে মেনে নিবো পুলিশ এসেছিলো পুলিশ তদন্ত করেছে।
মামলার বিবরণে জানা যায়, সম্পা বানু গত ২৪/১২ ২২০২২ দুপচাচিয়া সেন্ট্রাল ডায়গনষ্টিক এন্ড জেনারেল হসপিটালে আল্ট্রাসনো গ্রাম করেন। সেখানে প্রেগনেন্ট হওয়ার লক্ষণ রয়েছে। আঘাত পেয়ে দুপচাচিয়া ৫০ শয্যা হাসপাতাল থেকে ২৪/২৫ ডিসেম্বর ২০২২ দুই দিনের চিকিৎসা নিয়েছে৷ বিষয়টি নিশ্চিত করে দুপচাচিয়া হাসপাতের ইনচার্জ ডঃ মোঃ রেজানুল হক৷
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যন মশিউর রহমান সামীম জানান, অভিযুক্ত নজরুল ও তার মা অত্যন্ত ভালো মানুষ। আমার ইউনিয়নে দীর্ঘদিন বসবাস করছে। ফিতা মিয়ার সাথে জমি-জমা নিয়ে দ্বন্দ্ব চলছে,
বর্তমান যে মামলা হয়েছে এ বিষয়ে আমার জানা নাই, তবে এর আগে দুইবার পারিবারিক ঝামেলা হয়েছিল আমি মিটিয়ে দিয়েছি৷
মিথ্যা মামলা প্রসঙ্গে অ্যাডভোকেট রাইহান আলী বলেন ‘‘যারা মিথ্যা মামলার শিকার হবেন, তাদের প্রত্যেকের ক্ষতিপূরণের মামলা করা উচিত৷ এমনিতে ২১১ ফৌজদারি কার্যবিধিতে মামলা করা যাচ্ছেই, আমি সেটা বলছি না, আমি বলছি, তাদের প্রত্যেকের ক্ষতিপূরণের মামলা করা উচিত৷ কারণ, একটি মানুষকে যদি বিনা কারণে, বিনা অপরাধে জেল খাটানো হয়… যে অন্যায় বা মিথ্যা মামলা করে, তার কারণে কেউ যদি ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তার উচিত হচ্ছে একটি দেওয়ানি মামলা করা৷ মানে, মানি স্যুট ফাইল করা৷ এটি তো প্রমাণ হওয়া খুব ইজি (সহজ) হবে৷’’
ক্ষেতলাল থনার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.রাজিবুল ইসলাম জানন, আদালত থেকে নজরুল সহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলার তদন্ত দিয়েছে তদন্ত সাপেক্ষে,ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷

সর্বশেষ - সর্বশেষ

আপনার জন্য নির্বাচিত

আগাম জাতের তরমুজ, কেনার চেয়ে দেখার কাস্টমার বেশি

বিরামপুরে পিএফজি সার গুদামের উদ্বোধন

দিনাজপুর শহরের বাহাদুর বাজারের পুষ্পিতা কসমেটিক্সের স্বত্বাধিকারী জুয়েল সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত

bnp

দিনাজপুরে বিএনপির বিশাল পদযাত্রা অনুষ্ঠিত

বিরামপুরে পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে নবীন বরণ ও এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনু্ষ্ঠিত

গীতিকার বিশুর দুই মেয়ের দায়িত্ব নিলেন গুরু জেমস

বিরামপুরে আদর্শ হাইস্কুলের ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

শ্রমিক কল্যাণে শেখ হাসিনার গৃহীত পদক্ষেপ আজ বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত-মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি

চিরিরবন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে নেতা কর্মীদের মতবিনিময় সমাবেশ অনুষ্ঠিত

আয়েশা টাকিয়া’র হারিয়ে যাওয়ার কারণ!